ঘাটাইলে প্রথম করোনায় অাক্রান্ত হলেন মহিউদ্দিন,১২০ পরিবার লকডাউন

টাঙ্গাইলে ঘাটাইলে প্রথম করোনায় অাক্রান্তের তথ্য গোপন করে পালিয়ে থাকা ব্যক্তিকে করে হেফাজতে নিয়েছে পুলিশ। এসময় ওই এলাকার ১২০ পরিবার লকডাউন ঘোষণা করে কর্তৃপক্ষ । শুক্রবার রাত ১১টার দিকে তাকে উপজেলার সংগ্রামপুরের ঘোনারদেউলি থেকে হেফাজতে নেয় পুলিশ। পরে স্বাস্থ্য বিভাগের মাধ্যমে ঢাকায় স্থানান্তরের ব্যবস্থা গ্রহণের কথা জানিয়েছন উপজেলা নির্বাহী অফিসার অঞ্জন কুমার সরকার।
এ বিষয়ে তিনি বলেন, ২৪ বছরের ওই যুবক অাগে থেকেই কিডনি রোগে অাক্রান্ত। এজন্য চলতি মাসের ৪ তারিখ থেকে ৭ তারিখ পর্যন্ত সে ঢাকার শেরেবাংলা নগর হাসপাতালে ভর্তি থেকে চিকিৎসাধীন ছিলো। চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় ওই হাসপাতালের চিকিৎসকগণ তার মাঝে করোনার উপসর্গ দেখতে পেলে নমুনা সংগ্রহ করে অাইইডিসিঅারে প্রেরণ করে। একই সাথে তাকে কুর্মিটোলা হাসপাতালে রেফার্ড করে। কিন্তু এই যুবক সেখানে ভর্তি না হয়ে গ্রামের বাড়ীতে চলে অাসে। এবং কয়েকদিন অাগে সে জানতে পারে তার করোনা পজেটিভ। তারপর থেকে যোগাযোগের ফোন নাম্বারটি বন্ধ করে দেয় সে।
এরপর অাজ অাইইডিসার থেকে এই বিষয়ে ম্যাসেজ দেয়া হয়। দীর্ঘ প্রচেষ্টার পর প্রযুক্তির সহায়তায় তাকে হেফাজতে নেয়া হয়। এবং রাতেই বিশেষায়িত ব্যবস্থায় ঢাকায় প্রেরণের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।
তিনি অারও বলেন, যে ওই যুবক কোরনাভাইরাসে অাক্রান্তের খবর গোপন করে বিভিন্নস্থান ও মানুষের সাথে মেলামেশা করেছে সে কারনে প্রাথমিক ভাবে ওই গ্রামের ১২০ টি পরিবারকে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। অারও কোথায় গিয়েছে সে অধিকতর তথ্য সংগ্রহের কাজ চলছে। পরবর্তীতে সে বিষয়েও ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।