নাগরপুরে চাচার হুমকিতে নিরাপত্তাহীনতায় ভাতিজার পরিবার

প্রকাশিত: মার্চ ১৯, ২০২০

নাগরপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধিঃ
টাঙ্গাইলের নাগরপুরে পাওনা টাকা আদায়ে ভাতিজা আইনী পদক্ষেপ নেওয়ায় চাচার হুমকিতে নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছে ভাতিজার পরিবার। বৃহস্পতিবার সকালে নাগরপুর প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে ভূক্তভোগি ভাতিজা জয়নাল আবেদীন বিদ্যুৎ এর পরিবার। সংবাদ সম্মেলনে পরিবারের পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠকালে বিদ্যুৎ অভিযোগ করেন তার আপন চাচা মালয়েশিয়া প্রবাসী আ.রউফ লিটন একজন জনশক্তি ও হুন্ডি ব্যবসায়ী। এছাড়া মালয়েশিয়া বিএনপি’র সহ-সভাপতি ও তারেক জিয়ার ঘনিষ্ঠ সহচর এবং বিএনপি’র ডোনার সদস্য। তিনি জায়গা জমি ক্রয়, বাড়ি নির্মাণ ও জনশক্তি ব্যবসার কারনে বিভিন্ন দফায় আমার ও আমার পরিবারের কাছ থেকে ৮০ লক্ষ টাকা গ্রহন করে চাচা লিটন। পরবর্তীতে গত ২০১৯ সালের ২৮ মার্চ ৩০ লক্ষ ২০ হাজার টাকা ও ২৯ মার্চ ২০১৯ তারিখে ২৮ লাখ ৫৬ হাজার ৭২০ টাকার পৃথক দুটি চেক আমাকে দিয়ে চাচা লিটন ফের মালয়েশিয়া চলে যান। মালয়েশিয়া যাওয়ার পর থেকে আমার সাথে সব ধরনের যোগাযোগ বন্ধ করে দেন। চাচাকে আমার পাওনা টাকা ও ভিসার জন্য তাগিদ দেই। কিন্তু সে কোন প্রকার টাকা ফেরৎ না দিয়ে উল্টো মালয়েশিয়া অবস্থান করে সেখান থেকে বিভিন্নভাবে হুমকি ও হয়রানী করে চলছে। এলাকার সন্ত্রাসী শ্রেণির লোক দিয়ে হুমকি এবং আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলার ঘটনা ঘটায়। আমি অসহায় বিধায় তাদের বিরুদ্ধে আদালতে ১০৭ ধারা (শান্তি রক্ষা) মামলা দায়ের করি। এরপর আমার চাচা লিটন আরো বেপরোয়া হয়ে উঠে। একের পর এক হুমকি দিয়েই চলছে। বর্তমানে আমি ও আমার পরিবার চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছি। সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, পরিবারের কর্তা মো.আকবর হোসেন, মা আলেয়া বেগম, বোন ফাতেমা আক্তার, স্বপ্না আক্তার, স্ত্রী সাদিয়া আক্তার লিমা ও শিশু সন্তান জুনায়েদ আবেদিন সাদ।